সাহায্যের জন্য দরবার করবেন যৌন কর্মীরা

0
20

বাবুয়া দাসগুপ্ত؛ করোনা নামক সাইক্লোন আছড়ে পরার সাথে সাথে ফের একবার রোজগারহীন হয়ে পড়েছে পতিতাপল্লির দেহব্যাবসায়ীরা۔ সংক্রমণের ভয়ে নিষিদ্ধপল্লিমুখি হচ্ছেন না সাধারণ মানুষ۔۔ একই কারনে গ্রাহকদের আপ্পায়ন করে বিপদ বাড়াতে চাইছে না কেওই۔ তবে এমনটি চলতে থাকলে অচিরেই না খেতে পেয়ে মারা যাবেন তারা আশঙ্কা কিছু দেহ ব্যাবসায়ীর অন্যান্য কিছু শহরের মতোই শিলিগুড়ি শহরের হৃদপিন্ডে অবস্থিত পতিতালয়টি যথেষ্ট বড়۔ প্রচুর মহিলা যুবতীর অবস্থান এই বেশ্যাখানায়۔۔ উত্তরবঙ্গের সবথেকে বড় এই শহরে দেহব্যবসার মাধ্যমে কম রোজগার হয় না কিন্তু করোনা অন্যদের মতোই রুজি রুটিতে টান ধরিয়েছে ওই মেয়েগুলির তা বলার অপেক্ষা রাখে না۔ বাধ্য হয়ে কেউ উঠে আসছে রাস্তায় ওদের কাউকে জুটিয়ে বহুতলে চলছে ফুর্তি۔ তবে সেই ভাগ্য কজনের۔ বেশিরভাগের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ ক্রমাগত দৃঢ় হচ্ছে۔ এবারই তো প্রথম নয় কল্পনা (আসল নাম নয়) বলে নিষিদ্ধপল্লির এক যৌন কর্মীর কথায় ফি বছরই এই মহামারী তাদের বেঁচে থাকার প্রধান বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে۔۔ 20 সাল থেকেই এই সমস্যায় তারা জর্জরিত۔۔ তাদের বিষয়ে কেউ ভাবে না۔ এমত পরিস্থিতিতে গ্রাহকদের যাতায়াত চান না তারাও কিন্তু পেটে টান ধরতে শুরু হয়েছে۔۔ তাই বেপরোয়া হতে কতক্ষন۔۔ তার অভিযোগ কোনো সাহায্য পান না তারা লোকডাউনের সময় চাল আটা মিলেছিল কিন্তু বেঁচে থাকার জন্য তা যথেষ্ট নয়۔ এদিকে বর্তমানে রোগ যেভাবে ছড়াচ্ছে তার থেকে বাঁচতে হলে তাদের কারবার চলে না আর ঘোষিত লকডাউন না হওয়াতে সামান্য সাহায্যটুকুও মিলছে না۔ তিনি বলেন পরিস্থিতি পরিবর্তন না হলে পুর ভোটের পর সরকারি সাহায্যের জন্য দরবার করবেন তারা۔ (শেষ)

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here