ভোপালের সরকারি হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে ভয়াবহ আগুন! মৃত ৪ শিশু

0
25

ভোপালের সরকারি হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে ভয়াবহ আগুন! মৃত ৪ শিশু। আতঙ্কে শুরু হয় হুড়োহুড়ি। হাসপাতালে ভর্তি শিশুদের পরিজনদের অভিযোগ, শিশুদের উদ্ধারের চেষ্টা না করে হাসপাতালের কর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান। মধ্যপ্রদেশের হামিদিয়া হাসপাতালের কমলা নেহেরু বিল্ডিংয়ে মধ্যরাতে ভয়াবহ আগুন লাগে। এখনও পর্যন্ত ৪ জন শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। ৩৬ শিশুকে অন্য ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়েছে। তবে কীভাবে আগুন লেগেছে তার প্রকৃত কারণ এখনও জানা যায়নি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় দমকল ও পুলিশ।

 

আগুন নেভানো গেলেও ভোররাত পর্যন্ত উদ্ধারকার্য চালানো হয়। ঘটনাস্থলে আসেন মধ্যপ্রদেশ সরকারের মন্ত্রী বিশ্বাস সারং ও ডিআইজি ইরসাদ আলি। হাসপাতালে ডাকা হয়েছে বিশেষ চিকিৎসকের দলকে। জানা গিয়েছে, ওই বিভাগে মোট ৪০ জন শিশু ভর্তি ছিল। তার মধ্যে ৩৬ জনকে অন্য বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ৪ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের পরিবার পিছু ৪ লক্ষ টাকা করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে সরকার। ঘটনা সম্পর্কে খোঁজ নেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। এক আধিকারিক জানিয়েছেন, হাসপাতালের চতুর্থ তলের একটি ওয়ার্ডে আগুন লাগে।

 

ওই তলেই ছিল আইসিইউ। রাত ৯ টা নাগাদ হাসপাতালে আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে দমকলের ৮ থেকে ১০ টি ইঞ্জিন। এই ঘটনা প্রসঙ্গে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ট্যুইট, হাসপাতালের শিশুদের ওয়ার্ডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা খুবই মর্মান্তিক। দ্রুত উদ্ধার অভিযান শুরু করা হয়। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। যে শিশুরা গুরুতর অসুস্থ ছিল, তাদের বাঁচানো সম্ভব হয়নি। ওই শিশুদের অকাল মৃত্যু অত্যন্ত বেদনাদায়ক। তাদের আত্মার শান্তি কামনা করছি। নিহত শিশুদের পরিবারবর্গকে আমার সমবেদনা। আহত শিশুদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।

 

হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় উচ্চপর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব স্বাস্থ্য ও মেডিক্যাল এডুকেশন এই তদন্ত করবেন। এর আগে ঘটনা সম্পর্কে ভোপালের এসপি বিজয় খতরি বলেছিলেন যে, অগ্নিকাণ্ডের কারণ স্পষ্ট নয়। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। ঘটনার পর সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডে ভর্তি সমস্ত শিশুদের অন্য ওয়ার্ডে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাদের চিকিৎসা চলছে। তবে কীভাবে আচমকা আগুন লাগল তা এখনও জানা যায়নি। শট সার্কিট থেকে এই আগুন কিনা, তাও স্পষ্ট নয়। গোটা ঘটনা আপাতত উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার।

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here