রুমিলা,পায়েলদের মুখে হাসি ফোঁটাল প্রগতি হেল্প এন্ড কেয়ার নামে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা

0
17

মইদুল ইসলাম,নয়াজামানা- মুর্শিদাবাদ;- তাদের কাছে পুজো মানে আর পাঁচটা দিনের মতোই সাধারণ একটি দিন, নেই কোনো বাড়তি উচ্ছ্বাস, নুন আনতে যাদের পান্তা শেষ তাদের কাছে পুজো উপলক্ষ্যে নতুন পোশাক পাওয়া তো অনেকটাই স্বপ্নের মত, নিজের পাড়াতেও পুজো নেই ঠাকুর দেখতে যেতে হয় পাশের গ্রামে, তাই পূজো নিয়ে মাথাব্যথা নেই তাদের, হঠাৎ কয়েকজন উৎসাহী যুবক ঢুকে পড়ে গ্রামের ভেতর হাতে তাদের নতুন পোশাকের ব্যাগ, ৩ থেকে ১৪ বছর বয়সের সবাইকে লাইন করিয়ে শিক্ষক গৌতম হালদার জিজ্ঞাসা করলেন তোমাদের পড়াশোনার খবর কি? সবার তখন মুখ ভার, রুমিলা হাঁসদা, পায়েল সরেন বলল স্কুল তো এখন বন্ধ, তখন আর এক শিক্ষক দীপঙ্কর মন্ডল পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে বললেন তোমরা কে কে আবৃতি গান জানো হাত তোলো, তারপর বিকাশ টুডু, সুমনা মুর্মু, সনমতি সোরেন, আদরি হাঁসদারা আঞ্চলিক ভাষায় কবিতা ও গান করে শোনায়। এরপর ব্যাগ থেকে প্রত্যেকের জন্য নতুন পোশাক এবং সঙ্গে বই,সিলেট,পেন্সিল,রাবার,কাটার, পেন তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “প্রগতি হেল্প এন্ড কেয়ার ফাউন্ডেশন”- এর পক্ষ থেকে, সবশেষে তাদের দেওয়া হয় মিষ্টি । প্রত্যেকে খুব খুশি এবং বারবার বলতে থাকে তোমরা আবার আসবে তো? প্রতিশ্রুতি দিয়ে সংস্থার মুখ্য উপদেষ্টা শিক্ষক বিশ্বজিৎ দত্ত বলেন ” তোমাদের যে খাতা গুলো দেওয়া হলো সেগুলো পুজোর কদিন আনন্দ করার পর লিখে ভর্তি করে রাখবে , আমরা আবার আসবো এবং তোমাদের পড়াশোনার জন্য বই-খাতা যা যা লাগবে নিয়ে আসবো”। এদিন উপস্থিত ছিলেন অর্পিতা চ্যাটার্জি, বিনোদ শেখ, প্রবীর চক্রবর্তী লোপামুদ্রা চ্যাটার্জী প্রমূখ। সংস্থার সভাপতি সুখময় সাহা জানান ” আমাদের সংস্থার পুরোটাই চলে চাঁদা সংগ্রহ করে, আমাদের সারাবছরের সামাজিক কাজের মধ্যে অন্যতম প্রতিমাসে নিয়ম করে পঁচিশটা পরিবারকে মুদিখানা, স্টেশনারি সামগ্রী এবং কিছু নগদ অর্থ পৌঁছে দেওয়া, গত মহালয়ার পুণ্য তিথিতে বেলডাঙ্গার দরগাতলায় ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে ১০০ জন মানুষের মধ্যে আমরা নতুন বস্ত্র তুলে দিয়েছি, এই ছোট ছোট বাচ্চা গুলোর খবর পেয়ে চিন্তায় ছিলাম অর্থের জন্য তখন এগিয়ে আসেন বিশিষ্ট সমাজসেবক পরাগ চ্যাটার্জী , তিনি তাঁর জন্মদিনে এই পোশাক ক্রয়ের সিংহভাগ অর্থ আমাদের হাতে তুলে দেন, আমরা তখন পৌঁছে যায় এই ছোট-ছোট কচিকাঁচাদের অকৃত্রিম হাসি দেখার উদ্দেশ্যে”।

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here